ডিগ্রি ১ম বর্ষ থেকে ২য় ও ৩য় বর্ষে প্রোমশন বা উত্তীর্ণ হবার নিয়ম জেনে নিন

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি ১ম বর্ষ থেকে ২য় ও ৩য় বর্ষে প্রোমশন বা উত্তীর্ণ হবার নিয়ম দেখুন এই পোস্ট থেকে। ডিগ্রি পাস এর নিয়মিত ও প্রাইভেট রেগুলেশনের এই প্রমোশন এর নিয়ম ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষ থেকে কার্যকর হয়েছে।

ডিগ্রিতে শিক্ষা কার্যক্রমের মেয়াদঃ

  • জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ডিগ্রি পাস শিক্ষা কার্যক্রমের মেয়াদ ৩ বছর।
  • প্রতিটি শিক্ষাকার্যক্রম ৩টি একাডেমিক বর্ষে বিভক্ত করে পাঠদান সম্পন্ন করা হবে, যেমনঃ ১ম বর্ষ, ২য় বর্ষ ও ৩য় বর্ষ।
  • সংশ্লিষ্ট শিক্ষাকার্যক্রমের সিলেবাস অনুযায়ী প্রতি শিক্ষাবর্ষে ক্লাস শুরুর পর থেকে মোট ৩০ সপ্তাহ পাঠদান, ৪ সপ্তাহ পরীক্ষার প্রস্তুতি, ৬ সপ্তাহ বার্ষিক পরীক্ষা কার্যক্রম চলবে। অবশিষ্ট সময়ের মধ্যে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে। প্রতি বর্ষের পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর পরবর্তী বর্ষের ক্লাস শুরু হবে এবং এ জন্য ছাত্র-ছাত্রীদেরকে কলেজে নতুন বর্ষের জন্য প্রবেশনাল ছাত্র হিসেবে তালিকাভূক্ত হতে হবে।
  • বার্ষিক কোর্স ভিত্তিক পরীক্ষা এবং গ্রেডিং ও ক্রেডিট পদ্ধতিতে এই শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালিত হবে। গ্রেডিং ও ক্রেডিট পদ্ধতিতে জিপিএ (GPA) ও সিজিপিএ (CGPA) হিসেবে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

স্নাতক পাস শিক্ষাকার্যক্রমের গ্রুপসমূহঃ

  • বি এ পাস
  • বি এস এস পাস
  • বি বি এস পাস
  • বি এসসি পাস

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি ১ বর্ষ থেকে ২য় ও ৩য় বর্ষে প্রোমশন বা উত্তীর্ণ হবার নিয়ম।

ডিগ্রিতে রেজিষ্ট্রেশন কার্ডের মেয়াদঃ

  • পূর্ণকালীন ছাত্র-ছাত্রী হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মানুযায়ী একজন শিক্ষার্থী কেবলমাত্র একটি শিক্ষাকার্যক্রমে ভর্তি হতে পারবে।
  • একজন শিক্ষার্থীকে সর্বোচ্চ ৬ (ছয়) শিক্ষাবর্ষের মধ্যে ডিগ্রি পাস শিক্ষাকার্যক্রম সম্পন্ন করে ডিগ্রি অর্জন করতে হবে।
  • ১ বর্ষের সকল বিষয়ে উত্তীর্ণ না হলে ৩য় বর্ষের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।

তত্ত্বীয় কোর্সঃ

  • ৪ ক্রেডিট বা ১০০/৮০ মার্কের জন্য ৪ ঘন্টা
  • ২ ক্রেডিট বা ৫০/৪০ মার্কের জন্য ৩ ঘন্টা

ব্যবহারিক কোর্সঃ

  • ৪ ক্রেডিট কোর্সের জন্য ৬ ঘন্টা (সংশ্লিষ্ট সিলেবাসে নির্ধারণ করা থাকবে)
  • ২ ক্রেডিট কোর্সের জন্য ৩ ঘন্টা (সংশ্লিষ্ট সিলেবাসে নির্ধারণ করা থাকবে)

৩ বছর মেয়াদী ব্যচেলর ডিগ্রি কোর্স এর প্রোমশন, গ্রেড উন্নয়ন ও মান উন্নয়নের নিয়মাবলীঃ

  • এক বর্ষ থেকে পরবর্তী বর্ষে Promotion এর জন্য সকল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ বাধ্যতামূলক।
  • ১ম বর্ষ থেকে ২য় বর্ষে Promotion এর জন্য কমপক্ষে ৩ টি তত্ত্বীয় কোর্সে D বা তার চেয়ে বেশি গ্রেড পেতে হবে।
  • ২য় বর্ষ থেকে ৩য় বর্ষে Promotion এর জন্য কমপক্ষে ৩ টি তত্ত্বীয় কোর্সে D বা তার চেয়ে বেশি গ্রেড পেতে হবে।
  • কোন বর্ষে ১টি কোর্সে অনুপস্থিত থেকে বাকি সকল কোর্সে D বা তার চেয়ে বেশি গ্রেড পেলে শর্তসাপেক্ষে পরবর্তী বর্ষে Promotion পাবে। তবে অনুপস্থিত কোর্সে পরের বছর পরীক্ষায় অংশগ্রহণ বাধ্যতামূলক।
  • উপরের ৪টি শর্ত পূরণে ব্যর্থ হলে শিক্ষার্থী Not Promoted হবে এবং তার পরবর্তী বর্ষের ভর্তি বাতিল বলে গণ্য হবে। পরবর্তী বছর শিক্ষার্থী পূর্ববর্তী বছরের শুধুমাত্র F এবং অনুপস্থিত বিষয়ের গ্রেড উন্নয়ন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে। একই সাথে C এবং D গ্রেড প্রাপ্ত সর্বোচ্চ ২ টি বিষয়ে মান উন্নয়ন পরীক্ষার জন্য অংশগ্রহণ করতে পারবে।
  • ১ম বর্ষের সকল কোর্সে D বা তার বেশি না পাওয়া পর্যন্ত ৩য় বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।
  • Promoted এবং Not Promoted সকল পরীক্ষার্থী C এবং D গ্রেড পাওয়া প্রতি বর্ষের সর্বোচ্চ ২টি কোর্সে শুধুমাত্র পরবর্তী বছর মান উন্নয়ন পরীক্ষা দিতে পারবে। F গ্রেড প্রাপ্ত কোর্সে একাধিক বার পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ পাবে। একই সাথে গ্রেড উন্নয়ন এবং মান উন্নয়ন পরীক্ষা দেয়া যাবে। তবে F গ্রেড প্রাপ্ত কোর্সকে গ্রহণযোগ্য গ্রেডে উন্নীত হলে ঐ কোর্সে মান উন্নয়ন পরীক্ষার সুযোগ নেই। এছাড়া F গ্রেড পাওয়া কোর্সে পরবর্তীতে গ্রেড উন্নয়ন হলে প্রাপ্ত গ্রেড যাই হোক না কেন B+(plus) এর বেশি প্রাপ্য হবেনা।
  • চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশের পর CGPA ২.২৫ বা এর কম হলে শিক্ষার্থী রেজিষ্ট্রেশন মেয়াদ থাকা সাপেক্ষে পরবর্তী বছর পূর্বে মান উন্নয়ন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে নাই ৩য় বর্ষের এমন সর্বোচ্চ ২টি বিষয়ে মান উন্নয়ন (C এবং D গ্রেড প্রাপ্ত) পরীক্ষা দিতে পারবে। সর্বস্তরে মান উন্নয়ন পরীক্ষার ফলাফলের ক্ষেত্রে Pick Up পদ্ধতি অনুসরণ করা হবে। অর্থাৎ ১ম এবং ২য় বার পরীক্ষার ফলাফলের মধ্যে যেটি উচ্চতর গ্রেড সেই গ্রেড CGPA গণনার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।

সূত্রঃ nu.ac.bd-জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়

Leave a Reply