বাড়তি ভাড়া নিয়ে অসন্তোষ. বহাল আছে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন

গেল কয়েক দিন আগে পূর্বঘোষনা ছাড়া হটাৎ করেই ডিজেলের দাম বেড়ে যায়।
৬৫ টাকার ডিজেলের দাম বেড়ে লিটারে ১৫ টাকা বাড়িয়ে নতুন দাম নির্ধারণ হয়েছে ৮০ টাকা।
but কোনো ঘোষণা ছাড়া দাম বাড়ার সিদ্ধান্ত শুনে পরিবহন ধর্মঘট ডেকে বসেন বাস – ট্রাক মালিক সমিতি।
তারা জানায় তাদের দাবী না মানলে অনির্দিষ্টকালের জন্য এই আন্দোলন চলবে।
এই ধর্মঘটের কারনে বিভ্রান্তিতে পরে যায় শহর থেকে দেশের বিভিন্ন যাত্রীরা।
দুর্ভোগ পোহানোর মাত্রা চরম আকার ধারন করলে পরিবহন মালিকদের সাথে বৈঠক করেন মন্ত্রণালয়।

মালিক সমিতির দাবীতে উঠে আসে জ্বালানী তেলের দামের সাথে যাত্রী পরিবহন গাড়ির ভাড়া বাড়ানোর প্রস্তাব।
মন্ত্রনালয়ের সিদ্ধান্ত মতে ডিজেল চালিত গাড়ির ভাড়া মহানগরীর ভিতর ও বাহির ভিত্তিক ভাড়া নির্ধারণ করে দেয়।
গ্যাসে চালিত পরিবহন পূর্বের ভাড়াতে চলবে অর্থাৎ বাড়তি ভাড়া শুধু ডিজেল চালিত গাড়িতে প্রযোজ্য হবে।
ডিজেলের দাম বাড়লেও বাড়ানো হয়নি গ্যাস বা গ্যাস সংক্রান্ত কিছুর দাম।

but ডিজেলে চালিত গাড়িতে ডিজেল লেখা ষ্টিকার থাকা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে but
বাড়তি ভাড়া নিচ্ছে গ্যাসে চলাচল করা গাড়ি গুলিও। so যাত্রী সাধারনের ভোগান্তি আরো বেড়েছে। Because
গাড়ি ভাড়া বৃদ্ধির পর গ্যাসে চালিত and ডিজেল চালিত গাড়ি আলাদা করা মুশকিল হয়ে যাচ্ছে যাত্রীদের কাছে। and

কতিপয় অসাধু গ্যাস চালিত গাড়ির মালিকও ভাড়া বৃদ্ধি করেছে তাদের গাড়ি ডিজেল চালিত বলে ফেলে। but
গ্যাস চালিত গাড়িতে গ্যাস ফুয়েলের স্থানে তারা ডিজেল নেয়ার জায়গার মত ডিজাইন করে গ্যাস ফুয়েলের পাইপ অন্যত্র সরিয়ে নিয়েছে। and
এতে দেখে সহজে বুঝার উপায় নেই যে এই গাড়ি গ্যাস নাকি ডিজেলের? but
অন্যদিকে বাস ভাড়া নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন যাত্রী সাধারন। so
তারা চান ডিজেলের দাম কমিয়ে ভাড়া যেনো সাধারন মানুষের নাগালে আনা যায়। so
তারা আদৌ জানে না তাদের দাবী বা অনুরোধ রাখা হবে কিনা?

বাস গুলিতে সর্বনিম্ন ভাড়া ৫ টাকার বদলে করা হয়েছে ১০ টাকা

বাস গুলিতে সর্বনিম্ন ভাড়া ৫ টাকার বদলে করা হয়েছে because ১০ টাকা, so
ছোট ছোট গন্তব্যে যাওয়ার মত because যাত্রীদের খরচ হবে আগের চেয়ে দ্বিগুণ ভাড়া। so
বিভিন্ন বাসে and যাত্রী পরিবহন গুলিতে ভাড়া নিয়ে কন্ট্রাক্টর and যাত্রীদের মাঝে তর্ক বিতর্ক হতে দেখা গেছে প্রায় গাড়িতেই। so
ভাড়া বৃদ্ধিতে ক্ষোভ বিরাজ করছে সবার মনেই। and তেল ও বাস ভাড়ার দোহাই দিয়ে বেড়েছে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মুল্যও।

Because যাতায়াত খরচের সাথে তুলনা করে অনেক পণ্যেই বেড়েছে খরচ and খরচ পোষাতে বিক্রি করতে হচ্ছে বাড়তি দামে। and
দেশের সকল পরিবহনে স্টুডেন্ট ভাড়া তুলে দেয়া হয়েছে অনেক আগেই so বাস ও গাড়ি ভাড়ার বৃদ্ধির প্রতিবাদে আন্দোলন চলছে
দেশের বিভিন্ন স্থানে। and মৌখিক ভাবে বলা হলেও লিখিত ভাবে দেয়া হয়নি হাফপাশের কোনো অনুমোদন because
কিংবা আদেশনামা। but দেশের বিভিন্ন স্কুল কলেজ and সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলির ছাত্র ছাত্রীরা হাফ ভাড়া দেয়ার কথা
থাকলেও মানতে নারাজ বাস হেলপার ও চালক গন। because

তাদের দাবী মালিকপক্ষ থেকে তারা এমন কোনো কথা শুনেননি so
হাফপাশ দেয়া না দেয়া নিয়ে গাড়িতে তুমুল হট্টগোল বেধে যায় ছাত্র হেলপারের সাথে। Because
সম্প্রতি দেশের একাধীক প্রতিষ্ঠানের ছাত্র ছাত্রীরা আন্দোলন শুরু করেছেন তাদের হাফপাশ চালু করে দেয়ার দাবী জানিয়ে। so
দেশের বিভিন্ন স্থান সহ রাজধানীর অনেক পয়েন্টে সড়ক অবরোধ সহ নানা ভাবে বাস ভাড়া কমানো and
স্টুডেন্ট হাফ পাশ করার দাবী জানিয়ে আন্দোলন করে ছাত্র ছাত্রীরা। and
সম্প্রতি রাজধানীতে এক গাড়িতে বাড়তি ভাড়া নিয়ে তর্কের জেরে এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করার হুমকি দেয় অত্র গাড়ির হেলপার। and
এরপর ক্ষোভে ফেটে ওঠে অত্র প্রতিষ্ঠান সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ছাত্র ছাত্রী সহ সংশ্লিষ্ট অনেকে।

About admin

Check Also

ব্যারিস্টার সুমনকে যুবলীগের পদ থেকে সাময়িক অব্যাহতি

বিভিন্ন সময়ে নিজ এলাকার কিংবা রাস্তা খাল সহ নানান সমস্যা নিয়ে ফেসবুক লাইভে এসে আলোচনা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *